জগন্নাথপুরে আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবসে শিক্ষা অফিসারের লুকোচুরি: ক্ষুব্ধ সাংবাদিকরা

জহিরুল ইসলাম লাল মিয়া, জগন্নাথপুর :: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবসে শিক্ষা অফিসারের লুকোচুরির কারণে ক্ষোভ ও প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন সাংবাদিক ও সুশীল সমাজ।

মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) ১০ টা ৩০ মিনিটে উপজেলা পরিষদের মিলনায়তনে আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেদি হাসানের সভাপতিত্বে ও উপজেলা শিক্ষা অফিসার জয়নার আবেদীনের পরিচালনায় এক সভায় সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধি কারো উপস্থিতি লক্ষ করা যায়নি।

জানা যায়, উপজেলা শিক্ষা অফিসার জয়নার আবেদীন তাঁর বলয়ের কিছু লোকদের দাওয়াত দেন। এতে বাদ পড়ে যান অনেকেই। ইতি পূর্বে তিনি নামে মাত্র অনুষ্ঠান দেখিয়ে সরকারের বরাদ্দ আত্মসাৎ করেছেন। জয়নার আবেদীন ২০১৫ সালের ১০ মার্চ যোগদান করার পর থেকে বিতর্কিত নানান কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়েন। বিভিন্ন সময়ে তাঁর বিরুদ্ধে বিভিন্ন জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকায় ঘুষ-দুনীর্তির সংবাদ ছাপা হলেও তিনি বড় কর্তাদের ম্যানেজ করে থাকছেন ধরাছোঁয়ার বাহিরে।

সরকারের বিভিন্ন বরাদ্দে লুটপাট করে গড়ে তুলেছেন কালো টাকার পাহাড়। এছাড়া নাম মাত্র কাজ দেখিয়ে ভাউচার বানিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করে যাচ্ছেন। স্কুলের স্লিপ ও ক্ষুদ্র মেরামতে টাকাও ভাগ বসান উপজেলা শিক্ষা অফিসার জয়নাল আবেদীন। তিনি শিক্ষক বদলি বাণিজ্যে কাজে তাঁর বিরুদ্ধে রয়েছে দীর্ঘ দিনের অভিযোগ তাঁর ভয়ে কেউ মুখ খুলছেন না। এ সব ব্যাপারে তদন্ত আসলে বেড়িয়ে আসবে কালো টাকার রহস্য।

এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা অফিসার জয়নার আবেদিন বলেন, কয়েকজন সাংবাদিককে বলেছি আগামীতে দাওয়াত পাবেন। আমার উপর আনিত অভিযোগ মিথ্যা।

উপজেলা নিবার্হী অফিসার মেহেদি হাসান জানান, শিক্ষা অফিস এ বিষয়ে দায়িত্ব পালন করেছে। দাওয়াতের বিষয়ে আমি জানিনা তারপরও বিষয়টি দেখছি।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আতাউর রহমান বলেন, এটা উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে দিবসটি পালিত হয়েছে। আমার পরিষদের কোন মিটিং হলে সাংবাদিকদের অবশ্যই দাওয়াত দেওয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের অপশনে ক্লিক করুন

এ জাতীয় আরও সংবাদ :




Facebook Page


Scroll Up