আজ রাণীগঞ্জ গণহত্যা দিবস

বিশেষ প্রতিবেদক :: আজ ১ সেপ্টেম্বর রাণীগঞ্জ গণহত্যা দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী কুশিয়ারা নদীর তীরবর্তী জগন্নাথপুর উপজেলার রাণীগঞ্জ বাজারে হত্যাযজ্ঞ চালায়। এতে প্রাণনাশ হয় শতাধিক। নরপিপাসুরা শুধু হত্যাযজ্ঞ করে শেষ হয়নি পেট্রোল দিয়ে বাজারটি জ্বালিয়েও দেয়।

ইতিহাস থেকে জানা যায়, ১৯৭১-এর পয়লা সেপ্টেম্বর স্থানীয় রাজাকার এহিয়া ও রাজ্জাককে দিয়ে খবর পাঠিয়ে রাণীগঞ্জের সকল ব্যবসায়ী, বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা ক্রেতা, বড় বড় নৌকার মাঝিদের বাজারের রাজ্জাক মিয়ার দোকানে আসতে বলা হয়। এ সময় কেউ কেউ ভয়ে পালালেও নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রক্ষা এবং ঝামেলা এড়ানোর জন্য শতাধিক মানুষ তাদের কথামতো উপস্থিত হন। সকলে জড়ো হওয়ার পর কিছু বুঝে ওঠার আগেই রশি দিয়ে বেঁধে ফেলা হয় শতাধিক মানুষকে। পরে তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয় পাশের কুশিয়ারা নদীর তীরে। সেখানে সারিবদ্ধভাবে দাঁড় করিয়ে পেছন থেকে গুলি করা হয়। এতে তাঁরা প্রাণ হারান। এঁদের মধ্যে ৩৪ জনের নাম পরিচয় পাওয়া গেলেও যুদ্ধ পরবর্তী সময়ে অনেক চেষ্টা করেও অন্যদের পরিচয় সনাক্ত করা যায়নি।

মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে রাণীগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ীরা মুক্তিযোদ্ধাদের খাবার সরবরাহ করতেন। বিষয়টি স্থানীয় কিছু রাজাকার জানিয়ে দেওয়ায় এ হত্যাকাণ্ড চালায় পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী। হত্যাকাণ্ডে শতাধিক শহীদ হলেও লাশ নদীতে ফেলে দেওয়ায় মাত্র ৩৪ জনের নাম পরিচয় পাওয়া গেছে। ২০১০ সাল থেকে এ গণহত্যা দিবসে স্থানীয় প্রশাসনের পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন শ্রদ্ধা নিবেদনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করছে। এবারও উপজেলা প্রশাসন ফুলেল শ্রদ্ধা জানাবে বলে জানিয়েছেন জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মেহেদী হাসান। তিনি জানান, আমরা শ্রদ্ধা জানাবো এবং ইউনিয়ন পরিষদ শ্রদ্ধা জানানোসহ অন্যান্য কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

স্থানীয়ভাবে শহীদদের স্মরণে গঠিত শহীদ গাজী ফাউন্ডেশন এর উদ্যোগে শ্রদ্ধা নিবেন করা হবে। বাদ জোহর রাণীগঞ্জ বাজারে খতমে কোরআন ও মিলাদ-মাহফিল ও দোয়ার আয়োজন করা হয়েছে। তাছাড়া বিকাল ৩ টায় ফাউন্ডেশন কার্যালয়ে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন শহীদ গাজী ফাউন্ডেশন’র সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম আকমল।

রাণীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানানো হবে বলে জানিয়েছেন ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক আবদুস সামাদ। তিনি জানান, আমরা শহীদদের প্রতি প্রতিবছরের ন্যায় এবারও শ্রদ্ধা জানাবো। এবং তাঁদের স্মৃতিচারণ করে আলোচনা সভা করবা। এছাড়া তাঁদের আত্মার শান্তি কামনায় দোয়া ও মিলাদ-মাহফিলের আয়োজন করেছি।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের অপশনে ক্লিক করুন

এ জাতীয় আরও সংবাদ :




Facebook Page


Scroll Up