সর্বশেষ সংবাদ:
হায় মধ্যবিত্ত! রোটারী ক্লাব সিলেট গার্ডেন ভিউ’র উদ্যোগ ও প্রবাসীদের অর্থায়নে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ প্রাথমিকের সংসদ টেলিভিশন ক্লাসের রুটিন প্রকাশ করোনাকালে শবে বরাত : ঘরে বসে ইবাদত করার আহ্বান পরিকল্পনামন্ত্রীর রাজধানীতে একই পরিবারের ৬ জন করোনা আক্রান্ত মৌলভীবাজারে মারা যাওয়া মুদি দোকানদার জেলার প্রথম করোনা আক্রান্ত করোনা : সুনামগঞ্জের তিন উপজেলায় টেস্ট কিটসহ চিকিৎসা সামগ্রী পাঠালেন পরিকল্পনামন্ত্রী চৌগাছায় ২ মাথা, ৪ হাত ও ৪ পা বিশিষ্ট শিশুর জন্ম কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা সাইফুর ও রাহেলের উদ্যোগে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও খ্যাদ সামগ্রী বিতরণ ঢাকায় প্রবেশ ও বের হওয়া বন্ধ কানাইঘাটে বখাটের ছুরিকাঘাতে ব্যবসায়ী আহত, হামলাকারী আটক নামাজ শেষ করে আইভি শুনতে পান করোনায় নিউইয়র্কে মারা গেছেন তিনি ব্রিটেনে হু হু করে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা, ২৪ ঘন্টায় ৭০৮ জনের মৃত্যু সিলেটে প্রথম করোনা আক্রান্ত চিকিৎসক ভুঁয়া লন্ডনীকন্যা সেজে বিয়ে, অত:পর তিনবোন জগন্নাথপুরে গ্রেফতার স্বামীকে ‘ভিডিওকলে’ রেখে স্ত্রীর আত্মহত্যা করোনা ইস্যুতে চীনের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির আবেদন জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রীর পূর্ণাঙ্গ বক্তব্য ‘আমরা হাত ধুয়ে কি করব, যদি পেটে ভাত না থাকে?’ ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের অন্তঃসত্বা বান্ধবী করোনা আক্রান্ত

অহেতুক ঘোরাঘুরি করে কী লাভ? আসুন সরকারের নির্দেশনা মেনে চলি

জাকারিয়া আহমদ:: অহেতুক ঘোরাঘুরি করা আমাদের দেশের এক শ্রেণীর মানুষের অভ্যাসে পরিনত হয়েছে। তাদের কোন কাজ নেই, শুধু বাজার কিংবা রাস্তাঘাটে ঘোরাঘুরি করতে হবেই। প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে যখন গোটা বিশ্ব অচল তখন আমাদের দেশের এক শ্রেণীর মানুষের কাছে তা মজার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। কেউ কেউ এ মরনঘাতী ভাইরাসকে নিয়ে মজার মজার কৌতুক করছেন। এ ভাইরাসকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন অফিসের ছুটি ঘোষনা করা হলেও ঈদের মতো আনন্দ করে ঘরে ফিরছেন। এবার বুঝুন আমরা কেমন জাতি।

এক শ্রেণীর মানুষরা বলছেন এসব কী করছে সরকার। আমাদের দেশে এমন সমস্যা হবেনা। অযথা স্কুল মাদ্রাসা দোকান পাঠ বন্ধ করে দিচ্ছে কেন সরকার। অথচ তারা জানেন এবং টিভিতেও দেখছেন ইতোমধ্যে দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত আছেন আরও ৪৪ জন। তারপরও আবোল-তাবোল মন্তব্য।

Advertisement

বিশ্বের বড় বড় পরাশক্তির দেশগুলো আজ অদৃশ্য এক ভাইরাসের কাছে অসহায়। আক্রান্ত প্রতিটি দেশই তাদের নাগরিকদের ঘর থেকে বাহির হতে দিচ্ছে না। লকডাউন করে দেওয়া হয়েছে অনেক দেশ। এ ভাইরাস একজনকে আক্রান্ত করতে পারলে তার সংস্পর্শে আসা সবাইকে আক্রান্ত করবে এ বিষয়ে বারবার আমাদেরকে সতর্ক করা হলেও আমরা সে কথাগুলোকে কোন পাত্তাই দিচ্ছিনা। এই হচ্ছে জাতি হিসেবে আমাদের পরিচয়।

দেশের প্রতিটি শহর জেলা উপজেলা থেকে শুরু করে গ্রামগঞ্জের পাড়া মহল্লায় সরকারের তরফ থেকে মাইকিং ও লিফলেট বিতরণের মধ্য দিয়ে ঘরে বসে থাকার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। সড়ক পথ বিমান পথ সবই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। শুধু আমাদেরকে এ মহামারি থেকে সুরক্ষা দেওয়ার জন্য। প্রতিটি দেশের সরকার চায় তাঁর দেশের নাগরিকদের কীভাবে বিপর্যয় থেকে রক্ষা করা যায়। আমাদের দেশের সরকার তাঁর থেকেও ব্যতিক্রম নয়।

Advertisement

দেশের মানুষকে প্রাণঘাতী করোনার কবল থেকে দেশের মানুষকে রক্ষা করতে, লাশের মিছিল যেনো দীর্ঘ না হয় সে লক্ষ্যে সরকারের বিভিন্ন দপ্তর রাতদিন কাজ করে যাচ্ছে। দেশের জনগণকে ঘরে থাকার পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন প্রতিনিয়ত। কিন্তু আমরা সেই জাতি যাদের উপর যতক্ষণ পর্যন্ত প্রশাসন লাঠি চার্জ করবে না ততক্ষণ পর্যন্ত আমরা সরকারের নির্দেশনা মানতে নারাজ। এই হচ্ছে আমাদের পরিচয়। কারন আমরা ভালোই বুঝি মাইরের উপর ওষুধ নাই।

আমরা কী জানি বর্তমান এই কঠিন সময়ে দেশের কী পরিমান ক্ষতি হচ্ছে। এ বিষয় হয়তো সবাই জানে না। একদিন হরতাল হলে দেশের কোটি কোটি টাকার ক্ষতি হয়। দেশের জনগণ যদি ঘর থেকে বাহির না হতে পারে তাতে দেশের ক্ষতির পারিমানটা অনেক গুণ বেড়ে যায়। কিন্তু একটা দেশের সরকার কী চায় তাঁর দেশের অর্থনীতি অচল হউক। কোন দেশের সরকারই চায়না এমনটা।

আজ আমরা যখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কিংবা খবরের কাগজ হাতে নেই তখন দেখি অমুক জায়গায় মানুষকে ঘরে ফেরাতে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর লাঠি চার্জ। বাজারের দোকান বন্ধ করতে বলায় পুলিশের উপর হামলা। অমুক জায়গায় বাজার থেকে মানুষকে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনী দাওয়া করছে। আসলে এসব দেখলে বা শুনলে অবাক লাগে তাহলে কী আমরা এতটা বিবেকহীন?

সংকটময় এমন পরিস্থিতিতে যখন সরকার কিংবা আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে আমাদের সাহায্য করার কথা ঠিক তখন আমরা তাদের কাজকে কঠিন করে তুলছি। একবার কী নিজের বিবেকের কাছে প্রশ্ন জাগে না, যারা আমাদের সুরক্ষা দেয়ার জন্য জীবনের মায়া ত্যাগ করে দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তারাও তো আমাদের মতো মানুষ। আমরা যদি সতর্কতা অবলম্বন করে তাদেরকে সহযোগীতা করি তাহলে হয়তো সুন্দর হবে আমাদের দেশ, যেকোন বিপর্যয় মোকাবেলা করা আমাদের দেশের সরকারের জন্য সহজ হবে। বর্তমান ভয়ঙ্কর এ পরিস্থিতিতে হয়তো আমাদের দেশ এবং দেশের মানুষকে অনেকটা রক্ষা করতে পারবো।

আসুন সবাই সরকারের নির্দেশনা মেনে চলি। করোনাযুদ্ধে সরকারের কাজে সহযোগীতা দেশ এবং দেশের মানুষকে রক্ষা করে সোনার বাংলা গড়ে তুলি।

লেখক

জাকারিয়া আহমদ

নির্বাহী সম্পাদক

হাওরবাংলা২৪.কম

Advertisement

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের অপশনে ক্লিক করুন

এ জাতীয় আরও সংবাদ 👇


Facebook Page


Scroll Up