ঢাকার বাইরে ৬ জেলায় করোনাভাইরাস পরীক্ষার সুযোগ, তালিকায় নেই ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ সিলেট!

প্রবাসী অধ্যুষিত হিসেবে করোনাভাইরাস সংক্রমণের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে মনে করা হলেও সিলেটে এটি পরীক্ষার সুযোগ আপাতত মিলছে না।

ঢাকার বাইরেও করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) পরীক্ষার সুযোগ তৈরি হচ্ছে। আজ অথবা আগামীকাল থেকে ঢাকার বাইরের ৬ জেলায় কভিড-১৯ এর নমুনা পরীক্ষা করা যাবে। তবে এই ৬ জেলার মধ্যে নেই সিলেট।

জানা যায়, ঢাকার বাইরের জেলাগুলোতে পলিমেরেজ চেইন রিঅ্যাকশন বা পিসিআরের মাধ্যমে করোনাভাইরাস সনাক্ত করণ পরীক্ষা করানো হবে। সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পিসিআর থাকলেও তা দীর্ঘদিন ধরে অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। পিসিআর চালু করার জন্য প্রয়োজনীয় ল্যাব ও লোকবল নেই ওসমানীতে। ফলে সিলেটে কভিড-১৯ সনাক্তকরণ পরীক্ষার সুযোগ মিলছে না।

এ ব্যাপারে ওসমানী মেডিকেল কলেজের উপ-পরিচালক ডা. হিমাংশু লাল রায় বলেন, আমাদের হাসপাতালের রক্ত পরিসঞ্চালন কেন্দ্রে পিসিআর থাকলেও তা এখনো চালু করা যায়নি। বিষয়টি আমরা আগেই মন্ত্রণালয়কে জানিয়েছি। আনুষঙ্গিক জিনিসপত্র ও প্রশিক্ষিত লোকবল থাকলে এটি চালু করা সম্ভব বলেও জানিয়েছি।

তিনি বলেন, গতকালই (বুধবার) গণপূর্ত বিভাগের একটি দল আমাদের হাসপাতালে এসেছিলেন। তারা ল্যাব প্রতিষ্ঠার বিষয়টি যাচাই-বাছাই করে গেছেন। এব্যাপারে অর্থ বরাদ্দ হলে কাজ শুরু হবে।

এখন পর্যন্ত কেবলমাত্র সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইন্সটিটিউট-আইইডিসিআরে করোনাভাইরাস সনাক্তকরণ পরীক্ষা হয়ে থাকে। তবে বুধবার কভিড-১৯ সংক্রমণের সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে ব্রিফিংয়ে আইইডিসিআরের পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানিয়েছেন, ঢাকা ও ঢাকার বাইরের আরও কয়েকটি স্থানে সনাক্তকরণ পরীক্ষা করা যাবে।

তিনি বলেন, “কভিড-১৯ পরীক্ষা প্রাথমিক পর্যায়ে আইইডিসিআরে করা হবে। এখন যেহেতু রোগীর সংখ্যা আগের তুলনায় বেড়েছে, পরবর্তীতে সাসপেক্টেড রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে পারে, সে কথা মাথায় রেখেই আমাদের পরীক্ষার পদ্ধতি আরেকটু সম্প্রসারণ করা হয়েছে।”

তিনি জানান, ঢাকার জনস্বাস্থ্য হাসপাতাল, শিশু হাসপাতাল, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এই রোগের নমুনা পরীক্ষার ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

আর ঢাকার বাইরে চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটে বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ট্রপিকাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিসেস, কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইইডিসিআরের ফিল্ড ল্যাবরেটরি, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেও এ পরীক্ষা পদ্ধতি সম্প্রসারণ করা হচ্ছে।

আইইডিসিআর পরিচালক বলেন, “ঢাকার বাইরে আজ বা আগামীকালের মধ্যে পরীক্ষা পদ্ধতিগুলো শুরু হয়ে যাবে।”

এ বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সিলেটের বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ডা. আনিসুর রহমান বলেন, আইইডিসিআর কর্তৃপক্ষের আমিও শুনেছি। কিন্তু আমার জানামতে সকল বিভাগীয় শহরে এই পদ্ধতি সম্প্রসারিত করার কথা। কিন্তু ঘোষণাকালে সিলেটের নাম আসলো না কেন বুঝতে পারছি না। সিলেটের নাম ভুলে বলা হলো না, না-কি তালিকা থেকেই বাদ দেয়া হলো সে বিষয়ে ওসামানী মেডিকেলের পরিচালক স্যার ভালো বলতে পারবেন।

বিষয়টি জানতে আজ সন্ধ্যায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. ইউনুছুর রহমানকে ফোনে কল দিলে তিনি জানান, স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের সচিব আমাকে জানিয়েছেন যে- এই তালিকায় সিলেটও আছে। কিন্তু আজ আইইডিসিআর’র এমন বক্তব্যের বিষয়ে আমি কিছু মন্তব্য করতে পারছি না।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের অপশনে ক্লিক করুন

এ জাতীয় আরও সংবাদ :




Facebook Page


Scroll Up