সর্বশেষ সংবাদ:
সুনামগঞ্জে ইভটিজিং-এর প্রতিবাদ করায় নাট্যকর্মীকে হত্যার হুমকি মুশির ডাবল, নাঈমের ঘূর্ণিতে চালকের আসনে বাংলাদেশ দেশের বিদ্যুৎ খাতে আরো জাপানি বিনিয়োগের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর ক্যারিয়ারের তৃতীয় ডাবল হাঁকালেন মি. ডিপেন্ডেবল ৫ দিনের রিমান্ডে পাপিয়া আনোয়ার ইব্রাহিম নয়, তার স্ত্রীই হচ্ছেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী! প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের পদত্যাগ কি লেখা ছিল সালমান শাহ’র সুইসাইড নোটে ‘সামিরা-শাবনূর দুইজনকে নিয়েই সংসার করতে চেয়েছিলেন সালমান’ পর্যটকদের মিলনমেলায় পরিণত তাহিরপুরের শিমুল বাগান দ্বিতীয় বিয়ে করতে এসে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী গ্রেফতার প্রভাবশালী ব্যক্তিদের অন্তরঙ্গ দৃশ্যের ভিডিও ক্লিপ উদ্ধার পাপিয়ার কাছ থেকে আমরা শহরের সকল সুবিধা গ্রামে দিচ্ছি : প্রধানমন্ত্রী যুবমহিলা লীগ থেকে পাপিয়া বহিষ্কার খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি পিছিয়ে ২৭ ফেব্রুয়ারি মুজিব বর্ষে ​​​​​​​আসছে ২০০ টাকার নোট ও স্বর্ণ মুদ্রা পরিকল্পনামন্ত্রী কাছে দিরাই’র মেয়রের ২ কোটি টাকা বরাদ্দের দাবি জগন্নাথপুর পৌরসভার উপ-নির্বাচন, নৌকার মাঝি হতে চান ১২ নেতা সিলেটে ১৮ মামলার আসামি ডাকাত ফটিক নিহত, জনমনে স্বস্তির নিশ্বাস আটক শিবির ক্যাডারের দেয়া তথ্যে জকিগঞ্জ থেকে অস্ত্র উদ্ধার

সুনামগঞ্জসহ আরো চার জেলার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত

হাওরবাংলা ডেস্ক :: সোমবার আরও চারটি জেলার প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের কার্যক্রম ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেছেন মহামান্য হাইকোর্ট।

নিয়োগ বঞ্চিত প্রাইমারি শিক্ষকদের করা রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে সোমবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি মাহামুদুল হাসান তালুকদারের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ প্রদান করেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন এ্যাড.কামাল হোসেন।

Advertisement

স্থগিত হওয়া জেলা গুলো হলো গোপালগঞ্জ গাজীপুর,সুনামগঞ্জ ও শরীয়তপুর জেলা। রবিবার(২৬ জানুয়ারি) ২১ টি জেলার নিয়োগ কার্যক্রম ৬ মাসের জন্য স্থগিতাদেশ দিয়েছিলেন মহামান্য হাইকোর্ট।

স্থগিতাদেশ হওয়া জেলাগুলোর মধ্য গোপালগঞ্জ ও গাজীপুর জেলাও অন্তর্ভুক্ত ছিলো। আজ নতুন করে আরও দুটি সুনামগঞ্জ ও শরীয়তপুর জেলায় নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে।

Advertisement

এর আগে গত বছরের ২৪ ডিসেম্বর দেশের কয়েকটি জেলার নিয়োগ প্রার্থীদের করা এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ নিয়োগের বৈধতা নিয়ে রুল জারি করেন। রুলে প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা ২০১৩ লঙ্ঘন করে গত বছরের ২৪ ডিসেম্বর ঘোষিত ফল কেন আইন বর্হিভূত ঘোষণা করা হবে না এবং একইসঙ্গে ঘোষিত ফল বাতিল করে প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা ২০১৩ অনুসরণ করে নতুন ফল কেন ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চাওয়া হয়েছে। এ রুলের ফলে অনেক জেলার নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত করে প্রাইমারি শিক্ষা অধিদপ্তর।

আইনজীবী কামাল হোসেনের সেল ফোনে ০১৭১৬-২১০০৩৬ স্থগিত হওয়া বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা ২০১৩ এর ৭ ধারায় বলা হয়েছে, এই বিধিমালার অধীন সরাসরি নিয়োগযোগ্য পদগুলোর ৬০ শতাংশ নারী প্রার্থীদের,২০ শতাংশ পৌষ্য প্রার্থীদের এবং বাকি ২০ শতাংশ পুরুষ প্রার্থীদের দিয়ে পূরণ করা হবে। কিন্তু ২৪ ডিসেম্বর ঘোষিত ফলে সেটা অনুসরণ করা হয়নি। সে প্রেক্ষিতে মহামান্য হাইকোর্ট ২৬ জানুয়ারি ২১টি জেলায় নিয়োগ কার্যক্রম ৬ মাসের জন্য স্থগিত করেছেন। আজ আরও চারটি জেলায় নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত করেন মহামান্য হাইকোর্ট।

Advertisement

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের অপশনে ক্লিক করুন

এ জাতীয় আরও সংবাদ 👇


Facebook Page


Scroll Up